ছাত্রজীবনে প্রেম : জেনে নিন প্রেমের লাভ-ক্ষতি

ছাত্রজীবনে প্রেমে পড়ে নাই এমন মানুষের সংখ্যা প্রায় নেই বললেই চলে।  কেউই হয়ত প্লান করে প্রেম বা ভালোবাসার সম্পর্কে জড়ায় না। ছাত্রজীবনে প্রেমের লাভ-ক্ষতি হিসাবও কষে না।  এসব নিজের অজান্তেই হয়ে যায়। একটা সময় সবাই চায় তাকে নিয়ে কেউ ভাবুক। তার জন্য কেউ একজন অপেক্ষা করুক। তাকে তার মত করে অনুভব করুক। এসব কল্পনা বা নিজের একাকিত্ব দূর করতেও অনেকে  প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। কিন্তু কথা হচ্ছে পড়াশোনার সময় অর্থাৎ ছাত্রজীবনে প্রেম কতটা যুক্তিযুক্ত।  যদি যুক্তির বিষয় আসে তাহলে প্রথমেই বলতে হয় প্রেম কখনোই যুক্তিতর্কের বিষয় নয়। যুক্তি দিয়ে মুক্তি হলেও যুক্তি দিয়ে প্রেম হয় না। তাই ছাত্রজীবনে প্রেম করলে পড়াশোনার ক্ষতি হবে জেনেও অনেকে সম্পর্কে জড়িয়ে যায়। যদিও অনেকেই প্রেম করলে মানুষিক প্রশান্তি আসবে ভেবেও প্রেম করেন।  কিন্তু ছাত্রজীবনে প্রেমের সম্পর্ক কী আসলে প্রশান্তি আনতে পারে?  সে বিষয়ে প্রেম না করলে আসলে বুঝার উপায় নেই।

কথায় আছে প্রেম অন্ধ!

এটা বহুলস্বীকৃত একটি প্রবাদ, প্রেম অন্ধ।  অর্থাৎ প্রেমে পড়লে কোনটা ভালো আর কোনটা মন্দ সেটাও ঠিকঠাকমতো বুঝে ওঠা যায় না। কিন্তু এই অন্ধ প্রেমে যখন বাস্তবতার আলো পায় তখনই বুঝতে পারা যায় ছাত্রজীবনে প্রেম কতটা যুক্তিযুক্ত।  কেননা প্রেম হয় আবেগ দিয়ে।  বয়স বাড়ার সাথে সাথেই মানুষের আবেগেরও পরিবর্তন হয়। যেমনটা ধরুণ, একজন ১৮ বছরের ছেলে বা মেয়ের আবেগের সাথে একজন ৩৬ বছরের ছেলে বা মেয়ের আবেগ কখনই মিলবে না। কেননা বয়স বাড়ার সাথেসাথেই  জীবনের সাথে জড়িয়ে যায় কঠিন বাস্তবতা। তাই ১৮ বছর বয়সের সেই সহজ-সরল ভাবনাটাও এক সময় কঠিন ও রূঢ় হয়ে ওঠে। আর এ কারণেই কচি বয়সের সেই আবেগের কথা, তোমাকে ছাড়া আমি বাঁচবো না। এক সময় দুজনকেই কঠিনভাবে বাঁচতে শেখায়। নিজেদের ভালো থাকার জন্য সরে যান একে অপরকে ছেড়ে। তবে ছাত্রজীবনের প্রেম সব সময়ই যে সফল হয় না তা নয়।  তাই ছাত্রজীবনে প্রেমের সম্পর্কে জড়ানোর আগে এবং পরে  কিছু বিষয় খেয়াল করলে ছাত্রজীবনেও প্রেমের সম্পর্কে সুখ পাওয়া যায়।

আবেগ দিয়ে জীবন চলে না…

এটাও আমরা প্রায়ই বলি বা শুনে থাকি। আবেগ দিয়ে জীবন চলে না। কিন্তু প্রেমের সম্পর্কের ক্ষেত্রে বলা যায়, আবেগ ছাড়া প্রেম জমে না। যদি আপনি প্রেমের শুরুতেই বাস্তবতাকে সামনে নিয়ে আসেন তবে আপনার প্রেম হওয়ার সম্ভবনা ক্ষীণ। এই সত্য জেনেও সম্পর্কে জড়াতে হয়। অধিকাংশ প্রেমের ক্ষেত্রেই দেখা যায়, একটা নির্দিষ্ট সময় পর বাস্তবতার দোহাই দিয়ে সবাই আলাদা হয়ে যায়। অন্যদিকে, যারা শুরু থেকেই প্রেম এবং পড়াশোনাকে আলাদা করে রাখতে পারে তারা সফলতা পায়। তবে এই সংখ্যা অতি নগণ্য। তাই ছাত্রজীবনে আবেগের কাছে নিজেকে সমর্পণ না করে  সময় নিয়ে সঠিক সিদ্ধান্ত এবং সঠিক সঙ্গী চিনে প্রেমের সম্পর্কে জড়ানো উচিত। যেনো মাঝপথে ছেড়ে চলে যেতে না হয়।

প্রেম ও পড়াশোনাকে আলাদা করা

অনেকেই স্বপ্ন দেখেন ভালোবাসা দিয়ে বিশ্ব জয় করার কিন্তু একটা নির্দিষ্ট সময় মেয়ের বাবা বা ছেলের বাবার মন জয় করতেই হিমশিম খেতে হয়। এ কারণ হচ্ছে ক্যারিয়ার গঠনের সময়ে প্রেম ও ক্যারিয়ার গোলকে আলাদা করতে  না পারা।  প্রেম বা ভালোবাসা সব স্বপ্নই ফিকে হয়ে  যায় ভালো চাকরি না থাকার কারণে নিজের ভালোবাসার মানুষটি অন্যের হয়ে যায়। তাই ছাত্রজীবনের প্রেমের সম্পর্কের ক্ষেত্রে এ ব্যাপারে উদাসীন হলে ভবিষ্যৎ হয় বেদনা ও কষ্টের।  তাই নিজের ক্যারিয়ার গোল ঠিক রেখে প্রেমের সম্পর্কে জড়াতে বাধা নেই।  এজন্য সব সময় মাথায় রাখতে হবে  শুধু প্রেম দিয়ে জীবন চলে না। জীবন চলার জন্য আরও কিছু নিয়ামক দরকার।  তাই ভালোবাসা দিয়ে বিশ্ব জয় করার আগে নিজের ক্যারিয়ারকে সঠিকভাবে দাড় করানো খুবই জরুরি।

প্রেম ছাড়াও পড়াশোনার ক্ষতি হয়

প্রেম করলেই যে কেবল পড়াশোনার ক্ষতি হয় বিষয়টা এমন নয়।  প্রেম ছাড়াও ছাত্রজীবনে অনেক বিষয় আছে যা পড়াশোনা নষ্টের কারণ হয়ে যায়। অনেকেই বাড়ির বাহিরে হলে বা মেসে থাকেন বন্ধুদের সাথে। এ সময় তারা অনেক বদ অভ্যাস বা বদ নেশায়ও জড়িয়ে যায় ছাত্রজীবনেই। অনেক সময় দেখা যায় অনেকেই খারাপ সঙ্গ বা অভ্যাস কাটিয়ে ওঠার জন্য প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। এবং এটা অনেক সময় কাজেও দেয়। কারণ প্রেমের সম্পর্কে জড়ালে একটা মানুষ তার ভালো বা মন্দের খোঁজ-খবর নেয়। অর্থাৎ অনেকেই ছন্নছাড়া জীবনে অভ্যস্ত তারা ভালো সঙ্গী পেলে নিজেকে গুছিয়ে নিতে পারেন ভালোমতো।      যেটাকে বলা কেয়ারিং।  তাই শুধু যে প্রেম করলেই পড়াশোনার ক্ষতি হয় তা নয়; অনেক সময় ভালোও হয়  পড়াশোনায়।

ছাত্রজীবনে প্রেম স্বপ্ন পূরণে সহায়ক কিনা

ছাত্রজীবনে প্রেম করে অনেকেই জীবনের ছন্দ হারিয়ে পথভ্রষ্ট হয়ে যায়। অর্থাৎ নিজের বা পরিবারের স্বপ্ন পূরণ করতে পারে না। এই বিষয়ে পক্ষে বা বিপক্ষে অনেক মতই আছে। যদি অধিকাংশের ক্ষেত্রে আসা যায় তবে দেখা যাবে ছাত্রজীবনের প্রেম অনেকের জন্যই কল্যাণকর হয় না। কারণ জীবনের গুরুত্বপূর্ণ সময় ছাত্রজীবনকে তারা প্রেমের ফাঁদে পড়ে অযথা নষ্ট করে দেয়। অন্যদিকে, প্রেমে অন্ধ না হয়ে অনেকেই নিজের সঙ্গীকে আজীবন পাশে রাখার জন্য কঠোর অধ্যাবসায় করে নিজের লক্ষ্যের পথে অবিচল থেকে সফলতা অর্জন করে। তাই ছাত্রজীবনে প্রেম স্বপ্ন পূরণে সহায়ক হবে নাকি বাধা হবে তা নির্ভর করে তাদের দুজনের উপরেই। তারা আসলে কীভাবে নিজেদের সম্পর্ক প্রতিষ্ঠিত করতে চায় তার উপর।

প্রেমে নেই মানা! তবে কম করাই ভালো…

বলা হয় প্রেম মানে না বাধা। প্রেমের কোন বয়স নেই। সব বয়সেই মানুষ প্রেমে পড়তে পারে। আর প্রেম জীবন কখন আসবে সেটাও বলা যায় না।  তাই ছাত্রজীবনে প্রেম আসতেই পারে। আর আসলে তা অগ্রাহ্য করার শক্তিই বা কতজনের আছে। তবে ছাত্রজীবনের প্রেম অনেক সময় ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই উচিত ছাত্রজীবনে প্রেমের সম্পর্কে কম জড়িয়ে পড়াশোনায় মনোযোগী হওয়া। এতে ভবিষ্যৎ সুন্দর ও সাফল্যমন্ডীত হয়। প্রেমের পথে নানা বাধা আসে তা সঠিকভাবে মোকাবেলা করার জন্য জীবনে ভালো ক্যারিয়ার খুবই গুরুত্বপূর্ণ।    তাই নিজেকে প্রেমে ভাসিয়ে না দিয়ে নিজেকে শক্তভাবে ধরে রাখতে হবে। লড়তে নিজের লক্ষ্য অর্জন করতে।

ভালোলাগা নাকি ভালোবাসা

ছাত্রজীবনে অনেকেই ভালোলাগা না ভালোবাস বুঝে উঠতে পারে না। ভালোলাগা আর ভালোবাসাকে এক করে ফেলেন। ভালোলাগা আর ভালোবাসা কখনোই এক হয় না। ভালো অনেককেই লাগতে পারে তাই বলে সবাইকে ভালোবাসা যায় না। ছাত্রজীবনে ভালোলাগা আর ভালোর পার্থক্য না বুঝে অনেকেই ভুল করে বসেন। মনে রাখতে হবে ভালোলাগা কখনোই দীর্ঘস্থায়ী হয় না। তাই ভালোবাসার আগে সত্যি এটা ভালোলাগা না ভালোবাসা যেটা বুঝতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *