স্কিল ডেভেলপমেন্টের ৭ পরামর্শ

আমরা সবাই চাই পছন্দসই ক্যারিয়ার গড়তে। কিন্তু এই প্রতিযোগিতার যুগে নিজেকে কতটা প্রস্তুত করে নিতে পেরেছেন তা অনেকেই ভাবেন না। অনেকেই আছেন  এমন শুধু সিজিপিএর দিকে নজর স্কিল ডেভেলপমেন্ট (Skills Development)  বা দক্ষতা অর্জনের দিকে অমনোযোগী।  কিন্তু মনে রাখতে হবে সিজিপিএ বেশি হলেই দক্ষতা অর্জন হয় না।  বলা হচ্ছে, যার যত দক্ষতা অর্জন হবে সে কর্মক্ষেত্রে অন্যদের হতে তত বেশি এগিয়ে  থাকবে। তাই বলে সিজিপিএ দরকার নেই বা কম হলে সমস্যা নেই বিষয়টা তেমন নয়। কেননা সিজিপিএ হচ্ছে আপনার মেধার মূল্যায়ন।  আপনি যদি চাকরি প্রার্থী হন তবে চাকরিদাতা প্রথমেই আপনার সার্টিফিকেট দেখবেন৷ আপনি চাকরি দাতার কাছে নিজেকে বিস্তারিত উপস্থাপন করতে না পারলেও আপনার সিজিপিএ বলে দিবে আপনার মেধা কেমন। আর এর পরেই যে বিষয়টি আসবে তা হলো আপনার স্কিল বা দক্ষতা।  তাই বর্তমান প্রতিযোগিতামূলক চাকরির বাজার বা জব মার্কেটে নিজের বিভিন্ন বিষয়ে দক্ষতা আপনাকে অন্যদের  থেকে আলাদা করবে।

সুন্দর ক্যারিয়ার শুধু আমি বা আপনি নন। সবাই চায়। কিন্তু সুন্দর ক্যারিয়ার গঠনে আমরা নিজেরা কতটা প্রস্তুত তাই যাচাই করে নেয়া হয় জব মার্কেটে।  এবার সাতটি পরামর্শ জেনে নেয়া যাক। যা আপনার ক্যারিয়ার গঠনের আগে স্কিল ডেভেলপমেন্টের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ।

আগ্রহী হয়ে ওঠা

আপনাকে অবশ্যই কিউরিয়াস বা আগ্রহী হয়ে ওঠতে হবে। কেননা স্কিল ডেভেলপমেন্টের ক্ষেত্রে যে বিষয়ে স্কিল ডেভেলপমেন্ট করবেন সে বিষয়ে দক্ষতা অর্জনে আগ্রহী ওঠা বেশ জরুরি।  আপনি যদি কিউরিয়াস হয়ে উঠতে পারেন তবে কাজ হয়ে উঠবে আরও বেশি আনন্দঘন।  আপনি যদি কোন বিষয়ে আগ্রহী হয়ে উঠতে পারেন তবে সে কাজের মধ্যে একধরনের ভালোলাগা খুঁজে পাবেন। এতে আপনি কাজের প্রতি আরও বেশি অগ্রসর হবেন।

আপনার আগ্রহ বাড়াতে যা করবেন:

  • কোন বিষয়ে দক্ষতা অর্জনের সময় কখনোই ভাববেন না যে, কাজটি বিরক্তিকর। মনে করবেন, কাজটি বিরক্তিকর হয়ে উঠার কারণ হলো আপনার এ বিষয়ে জানার আগ্রহর কাছে বাধাসমূহ হেরে যেতে বসেছে। আর বিরক্তিকর তখনই বেশি হয়ে উঠবে যখন আপনি দক্ষতা অর্জনের খুব কাছে থাকেন।
  • নিজেকে প্রশ্ন করার অভ্যাস গড়ে তুলুন এবং নিজেই প্রশ্নের সমাধান খুঁজতে চেষ্টা করুণ।
  • বিষয়টি মজাদার করে তুলতে বিষয়টির শুধু নেগেটিভ দিক না খুঁজে পজিটিভ দিকগুলো  ভাবুন।  সেইসাথে  কাজের মধ্যে মজা খুঁজে নিন। এতে আপনার কাজ হয়ে উঠবে আরও বেশি প্রানবন্ত।

শেখার দক্ষতা বাড়ান

দক্ষতা অর্জন করার জন্য লার্নিং স্কিল বা শেখার দক্ষতা অর্জন করা সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ।  কেননা লার্নিং স্কিল ভালো হলে অন্যান্য বিষয়ে দক্ষতা অর্জনে সহায়তা হয়।  সেইসাথে বলা যায়, ভালো লার্নিং স্কিল একধরনের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করে। আপনি যদি কোন বিষয়ে দক্ষতা অর্জনে আগ্রহী হয়ে উঠেন তাহলে সে বিষয়ে আপনার দক্ষতা অর্জন সহজ হয়ে যায়। আর এটা প্রমাণিত যে, কিউরিয়াস মানুষ প্রকৃতি থেকেই অনুপ্রেরণা গ্রহণ করে।

বহুমুখীতা

দক্ষতা অর্জনের ক্ষেত্রে বহুমুখীতা বা বহুজ্ঞান সম্পন্নতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।  কেননা   একজন বহুমুখী জ্ঞান সম্পন্ন ব্যাক্তি নিজেকে যে কোন পরিবেশ পরিস্থিতির সাথে খাপ খাইয়ে চলতে পারেন। এবং যে কোন  কাজকে সহজভাবে গ্রহণ করে সে বিষয়ে দক্ষতা অর্জন  করতে পারেন।     একজন বহুমাত্রিক ব্যাক্তি ভবিষ্যৎ সম্পর্কেও পূর্বানুমান করে সে সময়ের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে নিতে পারেন। সেইসাথে নতুন নতুন প্রযুক্তি বা জ্ঞানের সাথে পরিচিত হয়ে কাজকে দ্রুততার সাথে সম্পন্ন করতে পারেন।

রোল মডেল খুঁজে নিতে হবে

আপনি যে বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে চান সে বিষয়ে একজন রোল মডেল খুঁজে নিন। তাহলে তাকে অনুসরণ করে নিজেকে সফলতা লাভ করতে পারবেন। তার থেকে আপনি কীভাবে নিজেকে প্রস্তুত করতে হবে তার দিকনির্দেশনা নিন। যখন আপনি রোল মডের পেয়ে যাবেন তখন আপনার এ কাজের ব্যাপারে বিস্তারিত ধারণা পেয়ে যাবেন। তিনি তার জীবন থেকে পাওয়া অভিজ্ঞতা আপনার সাথে শেয়ার করে আপনার কাজকে আরও সহজ করে তুলতে পারবেন। আর একজন সফল মানুষ একজনে অনুপ্রেরণা হয়ে উঠতে পারে। তাই কোন বিষয়ে স্কিল ডেভেলপমেন্ট করতে চাইলে অবশ্যই সে বিষয়ে পারদর্শী বা দক্ষ মানুষের থেকে পরামর্শ নেয়া শ্রেয়।

আরও পড়তে পারেন-  জিপিএ ও সিজিপিএ বের করার পদ্ধতি

মেন্টর বা পরামর্শদাতা খুঁজুন

আপনি যে বিষয়ে স্কিল ডেভেলপমেন্ট করতে চান সে বিষয়ের একজন মেন্টর বা পরামর্শদাতা খুঁজে নিন। একজন মেন্টর আপনার কাজটি কীভাবে দ্রুত গুছিয়ে করতে পারবেন সে ব্যাপারে পরামর্শ দিবেন। আর একজন ভালো মেন্টর অবশ্যই ভালো পরামর্শ দিয়ে আপনার কাজকে আরও বেশি সহজ করে তুলতে পারেন। তাই এজন্য আপনার চাই একজন রোল মডেলের পাশাপাশি ভালো মেন্টর। যিনি অবশ্যই আপনি যে বিষয়ে স্কিল ডেভেলপমেন্ট করতে চান সে বিষয়ে আপনার থেকে দক্ষ। ভালো মেন্টর আপনার কোন কাজটি করা যাবে এবং কোন কাজটি করা ঠিক নয় তার দিকনির্দেশনা দিবেন। এতে আপনার সময় ও শ্রম দুটোই সংক্ষেপ হবে।

তবে মেন্টর খুঁজে পাওয়া কখনই সহজ কাজ নয়। কেননা একজন ভালো মেন্টর আপনাকে তখনই সাহায্য করবে যখন আপনি তাকে সাহায্য করতে পারবেন। সেইসাথে তাকে বুঝাতে হবে আপনি কেন তাকে সময় দিচ্ছেন।

বাস্তবমুখী জ্ঞান অর্জন

স্কিল ডেভেলপমেন্টের সবথেকে কার্যকরী উপায় হচ্ছে বাস্তবমুখী জ্ঞান অর্জন করা।  অর্থাৎ হাতে-কলমে শিক্ষা নেয়া। আর বাস্তবমুখী শিক্ষা বিভিন প্রজেক্টের মাধ্যমে নেয়া সম্ভব। এতে করে আপনি নিজেই আপনাকে মূল্যায়ন করতে পারবেন। ক্যারিয়ার গঠনের আগে উচিত কোন কাজ শুরু করার আগে সে কাজে দক্ষতা অর্জন করে নেয়া৷ আপনি যদি কোন কাজে পারদর্শী হয়ে কাজ শুরু করতে পারেন তবে কাজটি আপনার কাছে সহজ ও প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে। তবে অনেকেই প্রায়ই অনেকেই এই ভুল করে থাকেন। কোন কাজ সম্পর্কে বাস্তবমুখী জ্ঞান অর্জন না করেই যে কোন পেশার প্রতি ঝুঁকে যান। ফলে বাস্তবতার কাছে পরাজয় মেনে নিয়ে আবার সেখান থেকে সরে আসেন। তাই কোন বিষয়ে স্কিল ডেভেলপমেন্ট অবশ্যই প্রত্যক্ষভাবে করতে হবে।

স্কিল ডেভেলপমেন্টের ধাপ সংক্ষেপ করা

আপনার দক্ষতা অর্জনের ধাপগুলো অবশ্যই সংক্ষেপ হতে হবে। আপনি যত দ্রুত ধাপগুলো সম্পন্ন করতে পারবেন তত তাড়াতাড়ি সে বিষয়ে দক্ষতা অর্জন করতে পারবেন।

2 Comments

Add a Comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *